হার্ট ভালো রাখতে সহায়তা করে কোন কোন খাবার জেনে নিন

হার্ট ভালো রাখতে সহায়তা করে কোন কোন খাবার জেনে নিন

দিন দিন হৃদরোগীর সংখ্যা বেড়েই চলেছে। বংশগত কারণ ছাড়াও অনিয়মিত জীবনযাত্রা, খাদ্যাভ্যাস, কায়িক শ্রমের অভাব, ভুল ডায়েট, দুশ্চিন্তা ইত্যাদি নানা কারণে হৃদরোগীর সংখ্যা বেড়েই চলেছে। বংশগত কারণকে কোনো পরিবর্তন করা না গেলেও উল্লিখিত প্রতিটি কারণকে পরিবর্তন বা সংশোধন করে হৃদরোগের ঝুঁকি অনেক কমানো সম্ভব। শুধু তা–ই নয়, এই পরিবর্তনগুলো হৃদরোগের চিকিৎসা করা ছাড়াও প্রতিরোধ করতেও উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখতে পারে।এমন কিছু খাবার আছে যেগুলো খেলে হৃদরোগ এর সম্ভাবনা কমে যায়। তাহলে জেনে নেওয়া যাক এই খাবার গুলো সম্পর্কে।

১.ছোলা- ছোলা কার্ডিওভাসকুলার পুষ্টিগুণ সম্পর্ণ। ছোলাতে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার এবং পটাসিয়াম রয়েছে। শুধু তাই নয় ছোলা কোলেস্টেরলের মাত্রা হ্রাস করতে সহায়তা করে। এছাড়াও এটি হৃদরোগের ঝুঁকিও হ্রাস করে।

২.কফি- এই তিক্ত পানীয়টি হার্টের জন্য অত্যন্ত উপকারী। কফি করোনারি হার্ট ডিজিজ, হার্ট ফেইলিওর এবং স্ট্রোকের ঝুঁকি হ্রাস করতে সহায়তা করে।

৩.ডুমুর- ডুমুর হার্ট সুরক্ষিত করার জন্য পুষ্টির অন্যতম সেরা উৎস। এই ফলটি ক্যালসিয়াম এবং ফাইবারযুক্ত যা হৃদরোগের ঝুঁকি হ্রাস করে।

৪.আদা- গন্ধযুক্ত এই মশলাটি নিয়মিত খেলে রক্তচাপ এবং করোনারি হার্ট ডিজিজের মতো হৃদরোগের ঝুঁকি হ্রাস করতে সহায়তা করে।

৫.গ্ৰিন টি- গ্রিন টি একটি সতেজ পানীয় হিসাবে পরিচিত। গ্রীন টি তে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট রয়েছে যা ধমনী ফলক তৈরি রোধে সহায়তা করে। এছাড়াও গ্রিন টি এলএল, কোলেস্টেরল এবং ট্রাইগ্লিসারাইড কমায়।

৬.বিনস- বিনস ফোলেট, ম্যাগনেসিয়াম এবং প্রোটিনযুক্ত।  বিনসে ফ্যাটও কম তবে ফাইবার বেশি। বিনস, মটরশুঁটি হোমোস্টিনের স্তর হ্রাস করতে এবং হৃদরোগ, স্ট্রোক এবং ক্যান্সারের ঝুঁকি হ্রাস করতে সহায়তা করে।