দই খাওয়া এর সাথে কোন কোন খাবার ভুলেও খাবেন না জেনে নিন

দই খাওয়া এর সাথে কোন কোন খাবার ভুলেও খাবেন না জেনে নিন

আয়ুর্বেদ মতে রোজ যদি এক বাটি টকদই রাখেন। তাতে ক্যালসিয়াম, ভিটামিন বি -২, ভিটামিন বি -১২, ম্যাগনেসিয়াম এবং পটাশিয়াম পাওয়া যায়। গরমকালে দই খেলে যে শুধু শরীর ঠান্ডাই থাকে তাই নয় এর পাশাপাশি খাবারও হজম হয়। রোজ এক বাটি দই খেলে শরীর ডিটক্স হয়ে যায়। আয়ুর্বেদ মতে, এমন কিছু খাবার রয়েছে, যা দইয়ের সঙ্গে খাওয়া উচিত নয়।

কারণ, দইয়ের সঙ্গে এই খাবারগুলি খেলে শরীরে টক্সিন সৃষ্টি হয় যার ফলে আপনার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা সহজেই দুর্বল হয়ে পড়ে। তাহলে জেনে নেওয়া যাক কোন কোন খাবার টক দইয়ের সঙ্গে খাওয়া উচিত নয়।

১.পেঁয়াজ- টক দই ও পেঁয়াজ একসঙ্গে খেলে অ্যালার্জি, গ্যাস, অ্যাসিডিটির মতো সমস্যা দেখা দিতে পারে। হতে পারে বমিও। বিশেষত গরমকালে এই দুটি কখনওই একসঙ্গে খাওয়া উচিত নয়। রায়তা বানানোর সময় অনেকেই পেঁয়াজ ব্যবহার করেন, পুষ্টিবিদদের মতে, পেঁয়াজ ছাড়াই রায়তা খাওয়া ভাল।

২.মাছ- একাধিক বাঙালি রান্নায় মাছের সঙ্গে টক দই মেশানো হয়। কিন্তু এ ক্ষেত্রেও দু’টি একসঙ্গে খেলে হতে পারে পেটের সমস্যা। দেখা দিতে পারে ত্বকের সমস্যাও। তাই মাছের যে কোনও পদ রান্নার সময় দই এড়িয়ে যাওয়াই উচিত।

৩.আম- আম দেহের উষ্ণতা বৃদ্ধি করে, আর টক দইয়ের কাজ ঠিক তার উল্টো। কাজেই দু’টি একসঙ্গে খেলে পেটের গন্ডগোল থেকে শরীরে টক্সিন জমা— শরীরে একাধিক সমস্যা হতে পারে।

৪.বিউলির ডাল- বিউলির ডাল- আবার দইয়ের সঙ্গে বিউলি ডালও খাওয়া উচিত নয়। এক সঙ্গে খেলে এই দুটিই শরীরের পক্ষে ক্ষতিকর প্রমাণিত হয়।

৫.ভাজাভুজি খাবার - অনেক সময় রেস্তরাঁয় ভাজাভুজির সঙ্গে ডিপ হিসাবে দই দেওয়া হয়। খেতে ভাল লাগলেও শরীরের পক্ষে তা মোটেই ভাল নয়। সকলেই জানেন, খাবার পর দই খেলে হজমে সুবিধা হয়। কিন্তু ভাজাভুজির সঙ্গে দই খেলে হজমপ্রক্রিয়া ধীর হয়ে যায়।