শ্রীরামপুর

শ্রীরামপুর

শ্রীরামপুর  Sri rampur ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের হুগলী নদীর তীরে অবস্থিত একটি নগর।এটি ১৭৫৫-১৮৪৫ পর্যন্ত ফ্রেডরিক্সনগর নামে ডেনিশদের অন্তর্গত ছিল। এই শহরে শ্রীরামপুর মহকুমা-র সদর দপ্তর অবস্থিত। এই অঞ্চলে ছোট, বড়, মাঝারি বিভিন্ন শিল্প গড়ে ওঠায় এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ শিল্পাঞ্চল ও হুগলী জেলার সবচেয়ে উন্নত শহর।

বাংলা তথা ভারতের প্রথম ও দ্বিতীয় পাটকল, এশিয়ার প্রথম বিশ্ববিদ্যালয়  এবং ভারতের দ্বিতীয় কলেজ , ভারতের প্রথম গ্রন্থাগার এখানেই স্থাপিত হয়। এমনকি শ্রীরামপুর মিশনের প্রতিষ্ঠিত ভারতের প্রথম কাগজকলও এই শহরে প্রতিষ্ঠা হয়। শ্রীরামপুরের মাহেশের রথযাত্রা বাংলার প্রাচীনতম এবং ভারতের দ্বিতীয় প্রাচীন রথযাত্রা।

শ্রীরামপুরের ভৌগোলিক অবস্থান ২২.৭৫° উত্তর অক্ষাংশ এবং ৮৮.৩৪° পূর্ব দ্রাঘিমায়। এটি সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ১৭ মিটার উচ্চতায় অবস্থিত। শ্রীরামপুরের পূর্বে হুগলী নদীর ওপারে ব্যারাকপুর, পশ্চিমে আরামবাগ, উত্তরে চন্দননগর ও চুঁচুড়া ও দক্ষিণে হাওড়া।

এই শহর কয়েক শতাব্দী পুরনো এবং উভয় বৃদ্ধি এবং সামন্ততন্ত্র, একটি সাংস্কৃতিক রেনেসাঁস  ব্রিটিশ দ্বারা প্রবর্তিত পূর্ব ভারতীয় নির্মাণের নিম্নলিখিত দিনেমারদের এবং তাদের উপনিবেশ আসার এবং তারপর পতন প্রত্যক্ষ করেছে রেলওয়ে, পরবর্তী শিল্পোন্নয়নের সঙ্গে বরাবর।

এটা সম্ভব যে শ্রীরামপুর নামটি সম্ভূত পারে শ্রীপুর, শ্রী রাম বা উভয় থেকে, অথবা এটি সীতারামপুর থেকে উদ্ভূত পারে সেখানে একটি খুব বিখ্যাত 'রাম-সীতা' মন্দির ছিল। শ্রীপুরে কিছু সম্ভ্রান্ত পল্লী যথা গোস্বামীপাড়া, লাহিড়ীপাড়া, মুখার্জীপাড়া, ভট্টাচার্যপাড়া, চক্রবর্তীপাড়া, বেণিয়াপাড়া ইত্যাদি, যার অধিবাসীরা বিভিন্ন গোষ্ঠী ও শ্রেণির ব্রাহ্মণ। ১৮ এর শতকে শ্রীপুর, গোপীনাথপুর, মনোহরপুর গ্রামগুলিকে নিয়ে একত্রে শ্রীরামপুর গঠিত হয়। আবার পরবর্তীকালে মাহেশ, বল্লভপুর, আকনা, চাতরা, রাজ্যধরপুর, নওগাঁ, সিমলা-সাতঘড়া -এই সমস্ত গ্রামগুলিকে অন্তর্ভুক্ত করা হয়।

[ আরও পড়ুন হাওড়া জেলা ]