ফিরহাদরা গ্রেফতার হতেই আসরে মমতা, সরাসরি হাজির CBI দফতরে!

ফিরহাদরা গ্রেফতার হতেই আসরে মমতা, সরাসরি হাজির CBI দফতরে!

ক্ষমতা না পাওয়ার প্রতিহিংসা! সোমবার নারদ কাণ্ডে (Narada Case) ফিরহাদ হাকিম (Firhad Hakim), শোভন চট্টোপাধ্যায় (Sovan Chatterjee), সুব্রত মুখোপাধ্যায় (Subrata Mukherjee) ও মদন মিত্রকে (Madan Mitra) গ্রেফতার করেছে CBI। আর এরপরই পুরোদমে আসরে নেমে পড়েছেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। সকাল সাড়ে দশটায় তিনি পৌঁছে গিয়েছেন নিজাম প্যালেসে, সিবিআই দফতরে।

ফিরহাদদের গ্রেফতারির ঘটনায় ক্ষোভে ফুঁসছে তৃণমূল। BJP-র প্রতিহিংসাকে এর নেপথ্যে দায়ী করছে তাঁরা। তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায় বলেন (Sougata Roy) কথায়, 'এটা পুরোপুরি বিজেপির প্রতিহিংসা। অত্যন্ত নিন্দনীয় ঘটনা। বাংলায় হেরে গিয়ে এখন প্রতিহিংসা চরিতার্থ করতে নেমেছে বিজেপি। তাই সিবিআই-কে কাজে লাগানো হচ্ছে।'

অপরদিকে, তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ বলেন, 'ক্ষমতা থাকলে সিবিআই আগে মুকুল রায়, শুভেন্দু অধিকারীদের বাড়ি থেকে নিয়ে আসুন। শুভেন্দু-মুকুলরা এখন বিজেপির কোলে বসে রয়েছে, তাই তাঁরা বাদ!' এরপরই নিজাম প্যালেসে যান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন ফিরহাদকে গ্রেফতার করতে সিবিআই চেতলায় গেলে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন তৃণমূল কর্মীরা। ফিরহাদের সামনেই রাস্তায় শুয়ে পড়েন তাঁরা। তাঁদের কোনওভাবে সামলে সিবিআই-এর সঙ্গে বেরিয়ে যান ফিরহাদ।

সম্প্রতি নারদ মামলায় অভিযুক্ত তত্‍কালীন চার বিধায়কের বিরুদ্ধে সিবিআইকে চার্জশিট পেশ করার অনুমতি দেন রাজ্যপাল। কিন্তু এ বিষয়ে বিধানসভার অধ্যক্ষের কোনও অনুমতি নেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ। প্রসঙ্গত, কয়লাকাণ্ডে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাড়িতে সিবিআই যাওয়ার আগেও হাজির হয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

তারও আগে সারদাকাণ্ডে পুলিশকর্তা রাজীব কুমারের বাড়িতে সিবিআই গেলে তা নিয়েও ধরনায় বসেছিলেন তিনি। আর এবার তিনি তাঁর দলের গুরুত্বপূর্ণ তিন নেতার গ্রেফতারির বিরুদ্ধেও সরব হলেন। এখনও এ বিষয়ে কিছু না বললেও সূত্রের খবর, নিজাম প্যালেসে সিবিআই আধিকারিকদের সঙ্গে দেখা করে তিনি ক্ষোভের সঙ্গে জানান, 'আমাকেও আপনাদের অ্যারেস্ট করতে হবে।'