কর্নফ্লাওয়ার কীভাবে ব্যবহার করবেন জেনে নিন

কর্নফ্লাওয়ার কীভাবে ব্যবহার করবেন জেনে নিন

যেকোন ধরণের বেকারি খাদ্যদ্রব্য বানানোর জন্যে যে উপাদানটি প্রয়োজন হয় সেটা হলও কর্নফ্লাওয়ার। বহুল ব্যবহৃত এই উপাদানটি গ্রহণে কোন পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই বলেই সকলের কথা বিবেচনা করে বেশীরভাগ বেকারি পণ্য তৈরিতে ব্যবহার করা হয় কর্নফ্লাওয়ার। তবে অনেকেই হয়তো জানেন না, দারুণ এই উপাদানটির বহুবিধ ও চমৎকার সকল ব্যবহার রয়েছে। রান্নাঘরে থাকা এই উপাদানটি শুধুমাত্র বেকারি খাদ্যদ্রব্য তৈরিতেই নয়, ব্যবহার করা যায় ঘরোয়া ছোটখাটো বেশ কিছু কাজেও।তাহলে জেনে নেওয়া যাক এই কর্নফ্লাওয়ারের কিছু বিশেষ ব্যবহার সম্পর্কে।

১.তেলাপোকা দূর করতে- তেলাপোকার যন্ত্রণা থেকে মুক্তি পেতে সমপরিমাণ কর্ণফ্লাওয়ার ও প্লাস্টার অফ প্যারিস এক সঙ্গে মিশিয়ে নিতে হবে। এবার তেলাপোকা ঘরে ঢোকা এবং লুকোনোর জায়গায় দিয়ে রাখতে হবে। 

২.পোকামাকড় দূর করতে- ঘরের মেঝেতে, দরজার কোণায় পোকামাকড়ের বাসা থাকলে কর্নফ্লাওয়ার এবং প্লাস্টার অফ প্যারিস একসঙ্গে মিশিয়ে জলে গুলে পেস্ট বানিয়ে নিতে হবে। পোকার বাসার মুখ এই পেস্ট দিয়ে বন্ধ করে দিতে হবে। পোকার উপদ্রব দূর হয়ে যাবে।

৩.জানালার কাঁচ পরিষ্কার রাখতে- জানালার কাঁচ ঝকঝকে করতে কর্ণফ্লাওয়ারের সঙ্গে জল মিশিয়ে মিশ্রন তৈরি করতে হবে। এই মিশ্রণটি জানালার গ্লাসে লাগিয়ে একটি কাপড় দিয়ে আলতো করে ঘষে নিতে হবে। এরপর জল দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে।

৪.কাপড় থেকে রক্তের দাগ দূর করতে- কাপড় থেকে রক্তের দাগ দূর করতে কর্ণফ্লাওয়ার বেশ কার্যকরী। কর্ণফ্লাওয়ার জলে মিশিয়ে পেস্টের মতো তৈরি করে নিতে হবে। এরপর তা কাপড়ের রক্তের দাগের উপর ঘষে লাগিয়ে নিতে হবে। খানিকক্ষণ রেখে একটি টুথব্রাশ দিয়ে ঘষে তুলে নিতে হবে। যদি দাগ এরপরও থাকে তাহলে আরো ১ বার একই কাজ করতে হবে। এরপর কাপড় ধুয়ে রোদে শুকিয়ে নিতে হবে।

৫.শিশুর ডায়াপার র‌্যাশ দূর করতে- শিশুর ডায়াপার র‌্যাশ দূর করতেও কর্ণফ্লাওয়ার ব্যবহার করা যেতে পারে। ডায়াপার পরিবর্তনের সময় শিশুর দেহে কর্ণফ্লাওয়ার দিয়ে নিতে হবে। এতে র‌্যাশ ওঠা বন্ধ হবে। এছাড়াও শিশুর স্নান করার জলে সিকি কাপ কর্ণফ্লাওয়ার গুলে নিলেও সমস্যা সমাধান হবে।

৬.তরকারিতে বেশি জল পড়ে গেলে- অনেক সময় তরকারিতে বেশি জল পড়ে গেলে অনেক জ্বাল দিলেও ঝোল ঘন হয় না। পাতলা ঝোল খেতেও ভালো লাগে না। এসময় তরকারির ঝোল ঘন করতে কিছুটা কর্ণফ্লাওয়ার দিতে হবে। তরকারির ঝোল ঘন হয়ে যাবে।