সহজেই শুক্তো বানানো এর পদ্ধতি সম্পর্কে জেনে নিন

সহজেই শুক্তো বানানো এর পদ্ধতি সম্পর্কে জেনে নিন

বাঙালি খাবারের কথা উঠলেই মাছের নাম সবার আগে চলে আসে। কিন্তু খুব কম মানুষই জানেন যে বাংলায় যত বিখ্যাত মাছের রেসিপি আছে, ততটা বিখ্যাত নিরামিষ রেসিপি শুক্তো আছে। শুক্তো ছাড়া বাংলার খাবার অসম্পূর্ণ মনে হয়। বিভিন্ন সবজি মিশিয়ে শুক্তো প্রস্তুত করা হয়। এটি ভাতের সাথে পরিবেশন করা হয়।এই রেসিপিটি তৈরি করা খুবই সহজ এবং খেতে খুবই সুস্বাদু।তাহলে জেনে নেওয়া যাক এই রেসিপিটি সম্পর্কে।

শুক্তো তৈরীর উপকরণ-

১.আলু কাটা - ১ টি,

২.বেগুন কাটা - ১ টি,

৩.কাঁচা কলা কাটা - ১ টি,

৪.শসা কাটা - ১ টি,

৫.সজনে কাটা - ৫০ গ্রাম,

৬.সিম - ৫০ গ্রাম,

৭.বড়ি - ১ ছোট কাপ,

৮.তেজপাতা - ১ টি,

৯.পাঁচফোড়ন - ১ চা চামচ,

১০.হলুদ গুঁড়ো - ১\২ চা চামচ,

১১.শুকনো লাল লঙ্কা - ১ টি,

১২.আদা পেস্ট - ১ চা চামচ,

১৩.নুন - স্বাদ অনুযায়ী,

১৪.সরেষ দানা - ১/২ চা চামচ ।

শুক্তো তৈরীর পদ্ধতি-

প্রথমে  একটি কড়াই নিয়ে এবং অল্প আঁচে গরম করার জন্য এতে তেল দিতে হবে।তেল গরম হয়ে এলে তাতে বড়িগুলো দিয়ে ভেজে নিতে হবে।বড়ির রং সোনালি হয়ে এলে একটি প্লেটে তুলে আলাদা করে রাখতে হবে।এবার একই তেলে সরেষ, শুকনো লাল লঙ্কা, তেজপাতা ও পাঁচফোড়ন দিয়ে সবগুলো ভেজে নিতে হবে।যখন এই মশলাটি ভাজা হবে , তখন এতে আদার পেস্ট যোগ করতে হবে এবং নাড়াচাড়া করে হালকাভাবে ভাজতে হবে।

আদা ও মশলা ভালো করে ভাজা হয়ে গেলে তাতে সব সবজি ও ভাজা বড়ি দিয়ে দিতে হবে। স্বাদমতো হলুদ ও নুন দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিতে হবে।এরপর প্রয়োজন অনুযায়ী জল দিয়ে শুক্তো রান্না করে নিতে হবে। প্যানটি ঢেকে দিতে হবে। সব সবজি নরম না হওয়া পর্যন্ত প্রায় ৫ থেকে ৭ মিনিট রান্না হতে দিতে হবে।সবজি নাড়তে হবে। সবজি ভালো করে সেদ্ধ হয়ে গেলে গ্যাস বন্ধ করে দিতে হবে। এরপর ভাতের সঙ্গে গরম গরম পরিবেশন করতে হবে।