রাহু-কেতুর বিয়াল্লিশা

রাহু-কেতুর বিয়াল্লিশা

ভারতীয় জ্যোতিষে রাহ-কেতুকে মূলতঃ পাপগ্রহ হিসেবেই বিবেচনা করা হয়ে  থাকে,বাস্তবে রাহু কেতু কোন গ্রহ নয়। রবিমার্গ ও চন্দ্রমার্গের দুটি ছেদ বিন্দু।  জ্যোর্তিবিজ্ঞানীরা এই রাহু-কেতুর অস্তিত্ব স্বীকার করে না।আমরা জ্যোতিষীরা বহু যুগ থেকে এর অস্তিত্ব স্বীকার করে নিয়ে এর কার্যকারিতা নিয়ে চমকে উঠছি, মানব জীবনে কি ভয়ংকর প্রভাব এর প্রভাব! এই  ওয়েবসাইটে রাহ-কেতু নিয়ে অনেক লেখা বেরিয়েছে, ভবিষ্যতে আরও বেরোবে। শ্রদ্ধেয় জ্যোতিষী শ্রী সুব্রত রায় তাঁর  লেখা বইয়ে রাহু-কেতুর প্রভাব নিয়ে যা বর্ণনা করছেন তার থেকে কিছু অংশ পরিমার্জন করে তুলে ধরার চেষ্টা  করছি:

(১) রাহু সংস্কার মানে না।

(২) কেতু ভীষণ সংস্কার মেনে চলতে চায়।

(৩) রাহু বেপরোয়া, স্ফূর্তিবাজ, পরবর্তীতে কি হবে মোটেই ভাবে না।

(৪) কেতু সেরকম স্ফূর্তিবাজ নয়, কাজ করে অনেক ভেবে চিন্তে।

(৫) রাহুর ধৈর্য কম।

(৬) কেতুর ধৈর্য বেশি।

(৭) রাহু কর্মঠ,বাতিকগ্রস্থ নয়।

(৮) কেতু অলস,বাতিকতগ্রস্থ।

(৯) রাহু হটকারী সিদ্ধান্ত নেয়।

(১০) কেতু ধীর স্থির ভাবে ভেবে চিন্তে  সিদ্ধান্ত নেয়।

(১১) রাহুর কথা বলায় ভাষায় দৃঢ়তা থাকে, এবং তাতে অশ্লীলতার ঝাঁঝ থাকে।

(১২) কেতু স্পষ্টবাদী কিন্তু অশ্লীল ভাষা ব্যবহার করে না।

(১৩) রাহু পরিস্কার পরিচ্ছন্নতার তোয়াক্কা করে না।

(১৪) কেতু সুচিবাইগ্রস্থ, নোংরা স্থান পচ্ছন্দ করে না। 

(১৫ ) রাহু কোনও ঘোর প্যাঁচের ধার ধারেনা। অভিসন্ধিযুক্ত নয়।

(১৬ ) কেতু ভীষণ ভাবে অভিসন্ধিযুক্ত হয়ে থাকে।

(১৭)  রাহু যদি হয় রেপিষ্ট

(১৮)  কেতু তবে স্যাডিস্ট।

(১৯) প্রেমে রাহু লাজ-লজ্জা হীনা।

(২০) প্রেমে কেতু ভীষণ গোপন চারী, বুক ফাটে তো মুখ ফাটে না।

(২১) রাহু সব ব্যাপারে লোভী, লোলুপ ও পেটুক।

(২২) কেতুর লোভ থাকলেও তার প্রকাশ নেই। 

(২৩) রাহু উগ্র মশলাদার খাবার চায়।

(২৪) কেতু সিদ্ধ,কম মশলাদার,বাসী খাবার পছন্দ করে।

(২৫)  রাহু জাঁকজমক পূর্ন তান্ত্রিক পূজা-অর্চ্চনা ভালবাসে।

(২৬)  কেতু নীরবে,নিভৃতে ধ্যান করতে চায়।

(২৭)  রাহু দ্বিধা সংশয়ে ভোগে না।

(২৮)  কেতু সব সময় দ্বিধান্বিত ও শঙ্কিত।কেতুর মধ্যে কি হয়,কি হয় ভাব।

(২৯)  রাহু বর্হিমুখী।

(৩০)  পক্ষান্তরে কেতু অন্তর্মুখী।

(৩১)   রাহু সকলের সঙ্গে মিশতে পারে বা মিশতে চায়।

(৩২)  কেতু কারও সঙ্গে মিশতে চায় না, একা থাকতে ভালবাসে।  

(৩৩)  রাহু জীবনকে সরাসরি ভোগ করতে চায়।

(৩৪)   কেতু জীবনকে আড়ালে থেকে উপভোগ করতে চায়।

(৩৫)   রাহু রং হিসেবে গাঢ়,টকটকে উজ্জ্বলতা পচ্ছন্দ ।

(৩৬)  কেতু নিস্প্রভবতা পচ্ছন্দ করে।  

(৩৭)  রাহু চায় আমিষ।

(৩৮)  কেতু চায় নিরামিষ এবং বাসী।

(৩৯)  রাহুর রোগ যদি হয় সিফিলিস,গনেরিয়া, এইচ-আই-ভি।

(৪০)   কেতুর রোগ সোরাইসিস,একজিমা।

(৪১)   রাহু প্রকাশ্যে নেশা করতে ভয় পায় না।

(৪২)   কেতু প্রকাশ্যে নেশা করতে ভয় পায়।