২ বছরের বেশি হলেই মাস্ক পরতে হবে বাচ্চাদেরও, ফরমান জারি এই রাজ্যে

২ বছরের বেশি হলেই মাস্ক পরতে হবে বাচ্চাদেরও, ফরমান জারি এই রাজ্যে

দেশজুড়ে কোভিডের দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়েছে। সংক্রমণের আঁচ থেকে কেউ রেহাই পাচ্ছে না। বিশেষ করে এবার যুবক-যুবতীদের আক্রান্ত হওয়ার প্রবণতা বেশি লক্ষ করা যাচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে কোনও ঝুঁকি না নিয়ে রাজ্যের শিশুদেরও মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করল ওড়িশা সরকার। গতকাল রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতর একটি নির্দেশিকা জারি করে। যেখানে বলা হয়, দু'বছরের বেশি শিশুদের নিয়ে বাইরে বেরোলে অবশ্যই মাস্ক পরাতে হবে।

এমনকী তাদের কোভিডের উপসর্গ দেখা দিলে নমুনা পরীক্ষার পর আইসোলেশনে রাখতে হবে। ইন্ডিয়ান অ্যাকাডেমি অব পেডিয়াট্রিক্সের অনুমোদনের পরেই এই সিদ্ধান্ত ঘোষণা করে ওড়িশা সরকার। বৃহস্পতিবার মহিলা ও শিশু কল্যাণ মন্ত্রককে একগুচ্ছ প্রস্তাব সমেত চিঠি পাঠায় ওড়িশার স্বাস্থ্য দফতর। সেখানে শিশুদের পাশাপাশি বয়স্ক ও বিশেষভাবে অন্তঃসত্ত্বা মহিলাদের মাস্ক ব্যবহারের আর্জি জানানো হয়েছে।

এ ছাড়া সেকেন্ড ওয়েভে কোভিড-আক্রান্তদের উপসর্গ বদলের তালিকাও তুলে ধরেছে দফতর। সর্দি, কাশি, স্বাদ-গন্ধ চলে যাওয়ার পাশাপাশি ডায়রিয়া, বমি, পেটে ব্যথার মতো নয়া উপসর্গ দেখা যাচ্ছে বলে সকলকে সতর্ক করা হয়েছে। পাশাপাশি স্বাস্থ্যবিধি নিয়েও রাজ্যবাসীকে সচেতন করেছে ওড়িশা প্রশাসন। এবার থেকে ২০ সেকেন্ডের বদলে ৪০ সেকেন্ড ধরে হাত ধোয়া, অযথা নাকে-মুখে হাত দেওয়া থেকে বিরত থাকার অনুরোধও রাখা হয়েছে। অন্যদিকে বাড়তে থাকা সংক্রমণের জেরে কটক ও ভুবনেশ্বরে লকডাউনের কড়াকড়ি বাড়াল সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসন।

এবার থেকে শহরের রাস্তায় মর্নিং ও ইভিনিং ওয়াক এবং সকাল-সন্ধে সাইক্লিংয়েও নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। পুলিশ কমিশনার এস কে প্রিয়দর্শী বলেন, 'এই নির্দেশ আগেই ঘোষণা করা হয়েছিল। কিন্তু এতদিন কেউ মেনে চলেননি। মাথায় রাখতে হবে, সংক্রমণের শৃঙ্খল ভাঙার জন্যই লকডাউন। বাইরে বেরোলে তা কোনওভাবে রোখা সম্ভব নয়।' এর পাশাপাশি নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের কালোবাজারি বন্ধ করতে এবং বেসরকারি হাসপাতালের অতিরিক্ত চার্জ নেওয়ার বিরুদ্ধে বিশেষ বাহিনী তৈরির কথা জানিয়েছেন তিনি।