বাঘা উপজেলা

বাঘা উপজেলা

বাঘা Bagha upazila বাংলাদেশের রাজশাহী জেলার অন্তর্গত একটি উপজেলা।এই উপজেলার উত্তরে চারঘাট উপজেলা ও বাগাতিপাড়া উপজেলা, দক্ষিণে দৌলতপুর উপজেলা, পূর্বে লালপুর উপজেলা ও বাগাতিপাড়া উপজেলা, পশ্চিমে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ এবং পদ্মা নদী।এই উপজেলায় তেমন কোন অর্থনৈতিক স্থাপনা নেই।

তবে এই এলাকার মানুষ অনেক পরিশ্রমী। এই উপজেলায় অসখ্যা বাজার এবং ২ টি গরুর হাট রয়েছে। তাহলে জেনে নেওয়া যাক এই বাঘা উপজেলার বিশেষ কিছু দর্শনীয় স্থান সম্পর্কে।

১.বাঘা শাহী মসজিদ- বাঘা উত্তর বঙ্গের এক প্রাচীনতম নগরী।ইতিহাস পর্যালোচনা এবং ঐতিহাসিক নিদর্শন থেকে এর সত্যতা প্রমাণিত হয়।পদ্মার উপকূলবর্তী এই প্রাচীন নগরীতে রয়েছে ঐতিহাসিক ‘‘ শাহী মসজিদ ’’ যার শিলালিপি,কারুকাজ ভ্রমনপ্রেমী মানুষদের আকৃষ্ট করে।বহুযুগ ধরে স্থানটি অন্যতম পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছে এবং সর্বসাধারণের জন্য ব্যবহৃত হচ্ছে।

২.বাঘা জাদুঘর- হাজার বছরের পূরাকীর্তি ও মুসলিম স্থাপত্বের নিদর্শন দিয়ে সাজানো জাদুঘর।বাঘার ঐতিহাসিক শাহী মসজিদওবিশাল দীঘিকে ঘিরে আগত দর্শনার্থীদের পর্যটন সুবিধাবৃদ্ধি সহ অতীতের হারানো ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে বাঘার বিশাল দীঘির পশ্চিম পাড়েও হযরত শাহ আব্দুল হামিদদানি মন্দর মাজারের উত্তর পার্শ্বে বাংলাদেশ প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তর ২০১১সালের জুনমাসে ৬২ লাখ টাকা ব্যয়েএই জাদুঘরের নির্মাণ কাজ শুরু করা হয়।যার নির্মাণ কাজ শেষ হয় ২০১২ সালের জুলাই মাসে।

৩.প্রগতী পার্ক- রাজশাহী জেলাধীন বাঘা উপজেলায় অবস্থিত প্রগতী পার্কের যাত্রা শুরু। ব্যক্তিগত উদ্যোগে উপজেলার গড়গড়ি ইউনিয়নের খাঁয়েরহাট গ্রামের মোঃ জলিল মন্ডল প্রগতী পার্ক গড়ে তোলান। পার্কের ভেতরে একটি পুকুরের লেক ছাড়াও দর্শনার্থীদের জলেতে চলাচলের জন্য নৌকা রয়েছে। পার্কের সমস্ত এলাকা জুড়ে ফুলের বাগানের সঙ্গে রয়েছে কৃত্রিম উপায়ে তৈরিকৃত বিভিন্ন জীবজন্তু। শিশুদের বিনোদনের জন্য নগরদোলা, দোলনাসহ বিভিন্ন রাইডের ব্যবস্থা।

৪.আড়ানী ক্ষ্যাপার বাবার আশ্রম- বাঘা উপজেলার ১৩ কিমি উত্তরে আড়ানীতে আছে ক্ষ্যাপা বাবার আশ্রম । খ্যাপা বাবা বা চটা বাবা এই আড়ানী আশ্রমের প্রতিষ্ঠাতা। এই আশ্রমে এক সময় অনাথ – আতুর, ভক্ত-বৈষ্মব, ষাদ-সন্ন্যাসী, আউলিয়া,দরবেশ, ফকির অতিথি অভ্যাগত সকলেই আশ্রয় পেতেন এবং প্রসাদ পেয়ে ধন্য হতেন। আশ্রমে মন্দির সংলগ্ন একটি নিম গাছ আছে এবং একটি বেল গাছ দুই বন্ধুর মত দাড়িয়েঁ অছে। আশ্রমের পূর্বদিকে আম-কাঁঠালের বাগান, পশ্চিমদিকে কয়েকটি নরিকেলের গাছ, উত্তরে হলদার পাড়া।পাশ দিয়ে বয়ে গেছে বড়াল নদী।

৫.উৎসব পার্ক- রাজশাহী জেলাধীন বাঘা উপজেলায় অবস্থিত উৎসব পার্ক। ব্যক্তিগত উদ্যোগে উৎসব পার্ক গড়ে উঠেছে। চার দিকে সবুজে ঘেরা বনানী।মেঠো পথ ছুঁয়ে আমবাগান আর পুকুর পাড়ে ঘেঁষে হালকা রোদের আলতো ছায়ায় চলছে কুঝিক ঝিক রেলগাড়ি।আকাশের ঠিকানায় থেমে থেমে গাল ফুলানো ধোঁয়া ছেড়ে রঙ বেরঙের বগি নিয়ে ইঞ্জিন ছুটছে এ প্রান্ত থেকে ও প্রান্ত।